যেভাবে দীর্ঘদিন অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যাবহার করবেন

 

যেভাবে দীর্ঘদিন অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যাবহার করবেন
বর্তমানে এন্ড্রয়েড ফোন সকলের হাতে হাতে চলে এসেছে এবং ছয় মাসে এক বছর ব্যবহার করার পর এটাকে ফেলে দিতে হয় বা এটা হ্যাং করা শুরু করে এ সম্পর্কে আমরা সকলেই জানি কিন্তু এর প্রতিকার সম্পর্কে আমরা কি জানি আমরা কিভাবে অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করলে এ ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হব না ।

সে বিষয় নিয়ে আটকে থাকতে বিস্তারিত আলোচনা আপনাদের সামনে যদি আপনাদের এই সমস্যা থেকে সমাধান পেতে চান তাহলে পুরো পোস্ট ধৈর্য্য সহকারে পড়ুন এবং অনেক গুরুত্বপূর্ণ কথা রয়েছে যেগুলো আপনাদের জানা দরকার ।

12 13 14 15 16 20 হাজার টাকা দিয়ে এন্ড্রয়েড ফোন কিনেছি কিন্তু ছয় মাস ব্যবহার করার পর এবং ইন্টারনেট ব্যবহার করার পর দেখা যাচ্ছে আমার মোবাইল মাঝেমধ্যে হ্যাং হয়ে যাচ্ছে এবং এটি দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে অনেক দিন পরপর রিসিভ করছি তাতেও কোনো কাজ হচ্ছে না ।

রিসেট করার কিছুদিন পর আবার সেই একই সমস্যা এর থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় কি এই ধরণের সমস্যায় অনেকেই আমরা পড়ে থাকি কিন্তু আসলেই অনেকেই জানিনা এ থেকে কিভাবে মুক্তি পেতে হয় সে বিষয় নিয়ে বিস্তারিত থাকবে আলোচনা ।

মোবাইল কিনার আগে অবশ্যই আপনাকে একটি ভালো ব্র্যান্ডের মোবাইল কেনা দরকার কারণ অনেক কোম্পানি বর্তমানে বাংলাদেশে বিদ্যমান রয়েছে যেগুলো খুব অল্প দামের এবং অস্থায়ী জিনিসপত্র মোবাইলে ব্যাবহার করে মোবাইল তৈরি করে যার ফলে মোবাইল বা এন্ড্রয়েড ফোন অতি তাড়াতাড়ি ধরনের সমস্যা দেখা দেয়  ,

সে ক্ষেত্রে আপনাকে ভাল মানের মোবাইল বাসা উচিত যদি আপনি সে বিষয়টি না বেঁচে থাকেন তাতে কোন সমস্যা নেই আজকের মেট্রিক্স দেখাবো সেটি যদি আপনি ফলো করেন ইনশাআল্লাহ , 100 পার্সেন্ট আপনি আগের থেকে ভাল সার্ভিস পাবেন আপনার এন্ড্রয়েড ফোনের ।

প্রথমেই কথা বলব অ্যান্ড্রয়েড ফোন আপডেট নিয়ে ।

এন্ড্রয়েড ফোন আপডেট করলে অনেক কিছু চলে যায় এমন কথা অনেকের মুখে শোনা যায় কিন্তু সে কথাগুলো সম্পূর্ণভাবে মিথ্যা এবং বানোয়াট যদি আপনি আপনার মোবাইল আপডেট না করেন সেক্ষেত্রে আপনার মোবাইল ফোন অতিরিক্ত পরিমাণে হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা - থাকে যদি আপনার মোবাইল ডিভাইস সমস্যার কারণে দিনে দু একবার হ্যাং হয় যদি আপনি আপনার মোবাইল এর আপডেট না করেন সেক্ষেত্রে দিনে 7  8 থেকে 2012 পর্যন্ত হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা -

থাকে সেক্ষেত্রে আমি আপনাকে সাজেস্ট করবো আপনি অবশ্যই দেখবেন আপনার এন্ড্রয়েড ফোনের আপডেট এসেছে কিনা যদি এসে থাকে সেক্ষেত্রে আপনার এন্ড্রয়েড ফোন আপডেট করুন ।

আচ্ছা মেনে নিলাম আপনি প্রতিনিয়ত আপনার এন্ড্রয়েড ফোন আপডেট করেন এখন তাতে করেও আপনার এন্ড্রয়েড ফোন হ্যাং করছে সে ক্ষেত্রে কি করবেন ?

সেক্ষেত্রে আপনাকে কিছু কাজ করতে হবে সে বিষয় নিয়ে আমি আলোচনা করব তার আগে একটি কথা বলে নেই যদি আপনার মোবাইল ফোন অতিরিক্ত পরিমাণে হ্যাং করে সেক্ষেত্রে রিসেট বা ফ্যাক্টরি রিসেট করার পর এই কাজগুলো করলে সে ক্ষেত্রে আরো ভালো ফল পাবেন ।

বন্ধুরা আশাকরি আপনার মোবাইলটি যদি অতিরিক্ত পরিমাণে হ্যাং করে সেক্ষেত্রে রিসেট করে নিয়েছেন এবং রিসেট করার পর আপনি কি একটি -  পেইড ভার্সন এন্টিভাইরাস লাগবে এবং এন্টি ভাইরাস হলে হবে না সেটি হতে হবে একদম সলিড এবং উন্নত মানের এবং প্রতিনিয়ত আপডেট হয় এমন এন্টিভাইরাস ।


গুগল প্লে স্টোরে এন্টিভাইরাস লিখে সার্চ করলে অসংখ্য এন্টিভাইরাস পাবেন সেক্ষেত্রে আপনি বুঝতে পারবেন কিভাবে যে কোন এন্টিভাইরাস আপনার জন্য প্রযোজ্য সেইজন্য আমি আপনাকে বাছাই করা এন্টিভাইরাস সিলেক্ট করব ।

এন্টিভাইরাস এর জন্য আপনি এই এন্টিভাইরাস ব্যবহার করতে পারেন এন্টিভাইরাসের নাম হচ্ছে -  AntiVirus Android Security 2021

ডাউনলোড করার জন্য এখানে ক্লিক করুন
এটি হচ্ছে একটি পেইড এন্টিভাইরাস যদি আপনি এটি ডাউনলোড বা কিনতে চান সে ক্ষেত্রে এখানে ক্লিক করতে পারেন যদি ক্র্যাক ভার্সন ডাউনলোড করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনি গুগলে সার্চ করে ডাউনলোড করে নিতে পারেন ।

যদি আপনি পেইড ভার্সন বাট ক্র্যাক ভার্সন ব্যবহার করতে না চান সেক্ষেত্রে আপনি যদি ফ্রি ভাসান অ্যান্টিভাইরাস খুঁজেন আমি আপনাকে কিছু ভালো এন্টিভাইরাস এর নাম সিলেক্ট করেছি নিচে -


Norton 360

আরো অনেক অনেক এন্টিভাইরাস আপনারা গুগল প্লে স্টোরে পাবেন তবে এক্ষেত্রে আমার কাছে সব থেকে ভালো যে এন্টিভাইরাস এর নাম কালেকশনে রয়েছে সেগুলো আপনাদেরকে উপহার দিলাম ।
এবং পেইড ভার্সন হিসেবে একটি দিলাম যদি অনেক রয়েছে তবে আপনি এই এন্টিভাইরাস ব্যবহার করে অনেক বেশি উপকার পাবেন ।

শুধু এন্টিভাইরাস ব্যবহার করলে আপনার মোবাইল সুপারফাস্ট হবে বাহেন আর করবে না এমন নয় আরো কিছু কাজ রয়েছে সেগুলো আপনাকে করতে হবে ।

প্রথমত আপনার মোবাইলে অতিরিক্ত পরিমাণে সফটওয়্যার ব্যবহার করা যাবে না এবং যাতে আপনার মোবাইলে ফেসবুক ইউটিউব থেকে অতিরিক্ত পরিমাণে নোটিফিকেশন আসে সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে ।

অতিরিক্ত নোটিফিকেশন আপনাকে ব্লক করে দিতে হবে অতিরিক্ত নোটিফিকেশন কিভাবে ব্লক করবেন সে বিষয় নিয়ে পরে আমরা আলোচনা করবো যদি আপনাদের প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে আমাদের কমেন্ট করবেন তখন আপনার কমেন্ট এর উপর ভিত্তি করে আমরা টিউটোরিয়াল তৈরি করব আশা করছি আপনারা এই নোটিফিকেশন কিভাবে ব্লক করে সে বিষয়ে অবশ্যই জানেন কারণ এটি একটি সাধারণ বিষয় ।

এবং রয়েছে ইমু ইমুতে অতিরিক্ত পরিমাণে নোটিফিকেশন আসে যার কারণে অ্যান্ড্রয়েড ফোন হ্যাং হওয়ার সম্ভাবনা অনেক পরিমানে বেড়ে যায় এবং রয়েছে স্কাইপি হোয়াটসআপ ।

যদিও এগুলো খুব প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার সেক্ষেত্রে আপনাকে এটি ব্যবহার করতে হবে তাই আমি বলব নোটিফিকেশনগুলো অফ করে রাখবে কারণ নোটিফিকেশন অফ করলে আপনার কাজ করা তে কোন বাধা হবে না ।

এবং যে সফটওয়্যার গুলোতেও অতিরিক্ত পরিমাণে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট থাকে যেমন শেয়ারইট ভিডিও ডাউনলোডার হিসেবে ব্যবহৃত হয় টিউবমেট এবং ভিডম্যাট যদিও টিউবমেট সফটওয়্যারটিতে অতিরিক্ত এড নাই সে ক্ষেত্রে আপনারা এই অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারে কিন্তু ভিডমেটে অতিরিক্ত পরিমাণে রয়েছে যার কারণে এটি একটি সমস্যা ।

অবশেষে একটি কথাই বলব আপনার মোবাইলটি মাঝেমধ্যে রিস্টার্ট দিবেন এটা কি আবার রিসেট ভাববেন রিস্টার্ট দেওয়ার জন্য আপনাকে আপনার মোবাইলের পাওয়ার কি চাপ দিয়ে ধরতে হবে তারপর সেখানে দেখতে পাবেন রিস্টার্ট নামের একটি অপশন রয়েছে সেটা মাঝে মধ্যে দিয়ে নিবেন যদি রিবোর্ট অপশন থাকে সেক্ষেত্রে আরো ভালো ।

আজকে পর্যন্তই পরবর্তী পোস্টের আমন্ত্রণ জানিয়ে শেষ করছি আজকেও টিউটোরিয়াল ধন্যবাদ সকলকে ।

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post